1. admin@channel21tv.com : channel21tv.com :
বুধবার, ১৭ অগাস্ট ২০২২, ০২:১১ পূর্বাহ্ন

বদলগাছীর মাঠ জুড়ে এখন হলুদের সমারোহ।

বুলবুল আহম্মেদ ( বুলু) বদলগাছী (নওগাঁ)প্রতিনিধি :
  • আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ২১ ডিসেম্বর, ২০২১
  • ২১৫ বার পঠিত

বুলবুল আহম্মেদ ( বুলু) বদলগাছী (নওগাঁ)প্রতিনিধি :

নওগাঁর বদলগাছী উপজেলার মাঠে মাঠে সরিষার ব্যাপক আবাদ হয়েছে। হলুদ ফুলে ভরে আছে জমি। ফুলের মৌ মৌ গন্ধ সুবাস ছড়াচ্ছে পুরো এলাকায়। আকৃষ্ট করছে মৌমাছিসহ সকল প্রকৃতি প্রেমিককে। এবার প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে, ফলন ভাল হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্ট কৃষকরা।
বদলগাছী উপজেলার বদলগাছী সদর ইউনিয়ন,আধাইপুর, কোলা,মথুরাপুর, মিঠাপুর,পাহাড়পুর, বালুভরা ও বিলাশবাড়ী ইউনিয়নের মাঠ জুড়ে সরিষা ফুলে ভরে গেছে ফসলের মাঠ। চারদিকে তাকালে যেন সবুজের মাঝে হলুদের সমাহার। কখনো কখনো সরিষার ক্ষেতে বসছে পোকাখাদক বুলবুলি ও শালিকের ঝাঁক।উপজেলায় এ বছর প্রায় ১হাজার ২০’ হেক্টর জমিতে সরিষা চাষ আবাদের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে বলে জানায় উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
সরজমিন ঘুরে দেখা যায়, সরিষার ফুলে ফুলে ও মৌ মৌ গন্ধে ভরে উঠেছে উপজেলার ৮টি ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার ফসলি সরিষা ক্ষেত। ফসলি মাঠের শোভা বাড়িয়ে তুলেছে এসব সরিষার ক্ষেত। মাঠের চারিদিক যেন হলুদ হলুদে পরিপূর্ণ। এক দেখাতেই মন কাড়বে দর্শনার্থীদের। সরিষা ফুলের শোভা আরো বাড়িয়ে তুলেছে অসংখ্য মৌমাছির দল গুণগুনিয়ে মধু আহরণে ব্যাস্ত।
উপজেলার বিলাশবাড়ী ইউপির দুধকুড়ি গ্রামের কৃষক ইসলাম, রাসেল, রুবেল, ভুট্টু, মানোয়ার, ডিপু, ও মোশারফ জানান, সরিষার গাছ ভালো হয়েছে। ভালো ফুল ফুটেছে বলে ভালো ফলনও আশা করা যায়। সরিষার ফুলে ফুলে হলুদ বর্ণের বর্ণিল জমিগুলোতে আশে পাশে দূর দূরান্ত থেকে স্কুল কলেজের সৌখিন প্রকৃতি প্রেমিকরা বেড়াতে আসছেন। আবার সরিষার ফুলের সৌন্দর্যকে ধরে রাখার জন্য অনেক তরুণ-তরুণীরা ক্যামারা ও ভিডিও মাধ্যমে নিজের ছবির সাথে সরিষার ফুলের ছবি ধরে রাখছেন।
এ বছর অনেকেই আগাম সরিষা অবাদ করেছেন। প্রাকৃতিক দুর্যোগ না হলে চলতি মৌসুমে সরিষার বাম্পার ফলন আশা করছেন উপজেলার কৃষকরা। বদলগাছী উপজেলায় সমতল এলাকা হওয়ায় গত বছরের তুলনায় এ বছর সবচেয়ে বেশী সরিষার চাষ করা হয়েছে। ছোট যমুনা নদীর চরে বিস্তীর্ণ মাঠ জুড়ে সরিষার চাষ করে রীতিমতো বিপ্লব ঘটিয়েছে কৃষকরা।
এদিকে, উপজেলার কোলা ইউনিয়নের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আলমগীর বলেন, এবার কৃষকরা সরিষা চাষে তাদের ভাগ্যবদল হবে। সরিষার আবাদ ভালো হওয়াতে তাদের মুখে যেন হাসির ঝিলিক। আবাদে সেচ, সার ও কীটনাশক অনেক কম লাগে। তার মতে, প্রাকৃতিক কোন দুর্যোগ না হলে এবার বাম্পার ফলন হবে। তিনি বলেন, সরিষা চাষ করে মানুষ শুধু তেল-ই তৈরি করে না। এই সরিষা ভাঙ্গিয়ে খৈল ও গাছ থেকে ভূষি তৈরি হয় যা গরুর ভালো খাদ্য এবং ভালো জ্বালানি হিসেবেও ব্যবহৃত হয়।
উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হাসান আলী জানান, গত বছরের চেয়ে এ বছর সরিষা আবাদে আগ্রহী বেশি সংখ্যক কৃষকরা। উপজেলার মাটির উবর্রতা শক্তি বৃদ্ধি পাওয়ায় এ বছর ব্যাপক সরিষার উৎপাদন সম্ভব। সরিষা কৃষকের স্বপ্ন পূরণের পাশাপাশি ভোজ্য তেলের ঘাটতি পূরণেও বিশেষ ভূমিকা রাখবে।
প্রাকৃতিক দুর্যোগ না থাকলে ও কোনো রকম রোগ বালাই না ধরলে সরিষা চাষে বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি আশা করছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই রকম আরো কিছু জনপ্রিয় সংবাদ

  • © All rights reserved © 2021 Channel21tv.Com
Design & Development By Hostitbd.Com